অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...

al-ihsan.net
বাংলা | English

ইসলামিক শিক্ষা - ১৭ জানুয়ারী, ২০১৭
 
সম্মানিত সূরা তাহরীম শরীফ উনার ১ থেকে ৫নং আয়াত শরীফ উনাদের সম্মানিত ছহীহ তরজমা মুবারক
আল্লামা মুহম্মদ আল আমীন

মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, يَاأَيُّهَا النَّبِيُّ لِمَ تُحَرِّمُ مَا أَحَلَّ اللهُ لَكَ تَبْتَغِي مَرْضَاتَ أَزْوَاجِكَ وَاللهُ غَفُورٌ رَحِيمٌ .قَدْ فَرَضَ اللهُ لَكُمْ تَحِلَّةَ أَيْمَانِكُمْ وَاللهُ مَوْلَاكُمْ وَهُوَ الْعَلِيمُ الْحَكِيمُ. وَإِذْ أَسَرَّ النَّبِيُّ إِلَى بَعْضِ أَزْوَاجِهِ حَدِيثًا فَلَمَّا نَبَّأَتْ بِهِ وَأَظْهَرَهُ اللهُ عَلَيْهِ عَرَّفَ بَعْضَهُ وَأَعْرَضَ عَنْ بَعْضٍ فَلَمَّا نَبَّأَهَا بِهِ قَالَتْ مَنْ أَنْبَأَكَ هَذَا قَالَ نَبَّأَنِيَ الْعَلِيمُ الْخَبِيرُ. إِنْ تَتُوبَا إِلَى اللهِ فَقَدْ صَغَتْ قُلُوبُكُمَا وَإِنْ تَظَاهَرَا عَلَيْهِ فَإِنَّ اللهَ هُوَ مَوْلَاهُ وَجِبْرِيلُ وَصَالِحُ الْمُؤْمِنِينَ وَالْمَلَائِكَةُ بَعْدَ ذَلِكَ ظَهِيرٌ. عَسَى رَبُّهُ إِنْ طَلَّقَكُنَّ أَنْ يُبْدِلَهُ أَزْوَاجًا خَيْرًا مِنْكُنَّ مُسْلِمَاتٍ مُؤْمِنَاتٍ قَانِتَاتٍ تَائِبَاتٍ عَابِدَاتٍ سَائِحَاتٍ ثَيِّبَاتٍ وَأَبْكَارًا. অর্থ: “হে আমার সম্মানিত নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! যিনি খ¦ালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি যা হালাল করেছেন, আপনি তা কী কারণে হারাম করলেন? আপনি কি হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদেরকে সন্তুষ্ট করার জন্য এটা করেছেন? যিনি খ¦ালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ক্ষমাশীল এবং দয়ালু। মহান আল্লাহ পাক তিনি আপনাদের জন্য আপনাদের শপথ থেকে অব্যাহতি পাওয়ার বিষয়টি বর্ণনা করেছেন। অর্থাৎ তিনি কসমের কাফ্ফারার বিষয়টি নির্ধারণ করে দিয়েছেন, শপথ থেকে অব্যাহতি পাওয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। সুবহানাল্লাহ! মহান আল্লাহ পাক তিনি হচ্ছেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত বন্ধু। সুবহানাল্লাহ! আর মহান আল্লাহ পাক তিনি সমস্ত বিষয় জানেন এবং প্রজ্ঞাময়। আর যখন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি একজন উম্মুল মু’মিনীন আলাইহাস সালাম (সাইয়্যিদাতুনা হযরত হাফছাহ আলাইহাস সালাম) উনার কাছে একটি বিষয় (তিনি আর মধু পান করবেন না) আস্তে আস্তে বললেন। তিনি আবার এই বিষয়টি আরেকজন উম্মুল মু’মিনীন আলাইহাস সালাম (সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম) উনাকে অবগত করলেন, এই বিষয়টি জানালেন। যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি আবার বিষয়টি ওহী মুবারক করে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে জানিয়ে দিলেন। তখন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উক্ত উম্মুল মু’মিনীন আলাইহাস সালাম উনাকে (মহান আল্লাহ পাক তিনি যা ওহী মুবারক করেছেন তার থেকে) কিছু বিষয় জরুরত আন্দাজ প্রকাশ করলেন, আর কিছু বিষয় যেগুলো জরুরী না সেগুলো প্রকাশ করলেন না। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি যখন সেই উম্মুল মু’মিনীন আলাইহাস সালাম (সাইয়্যিদাতুনা হযরত হাফছাহ আলাইহাস সালাম) উনাকে বিষয়টি অবগত করালেন, তখন তিনি জানতে চাইলেন এই বিষয়টি কে আপনাকে জানিয়েছেন? নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করলেন, যিনি ‘আলীমুল খবীর মহান আল্লাহ পাক যিনি সবকিছু জানেন এবং খবর রাখেন তিনি জানিয়েছেন। সুবহানাল্লাহ! যদি আপনারা (উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বাহ আলাইহাস সালাম ও হযরত হাফছাহ আলাইহাস সালাম) তওবা করেন, রুজু হন যিনি খ¦ালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার দিকে, অবশ্যই আপনাদের অন্তর মুবারক রুজু হয়ে গেছে। (উনারা তো তওবা করেছেনই, মহান আল্লাহ পাক উনার দিকে রুজু হয়েছেনই। যার কারণে উনাদের অন্তর মুবারক নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার দিকে রুজু আছে, রুজু হয়ে গেছে। সুবহানাল্লাহ!) আর যদি আপনারা পরস্পর (মিলে) নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত খিদমত মুবারক উনার আনজাম মুবারক দেন, তাহলে আপনারা কামিয়াবী হাছিল করবেন। (উনারা তো সম্মানিত খিদমত মুবারক উনার আনজাম মুবারক দিয়েছেনই এবং কামিয়াবী হাছিল করেছেনই। সুবহানাল্লাহ!) নিশ্চয়ই যিনি খ¦ালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত বন্ধু। সুবহানাল্লাহ! স্বয়ং হযরত জিবরীল আলাইহিস সালাম তিনি, সমস্ত ছালেহীন বান্দা-বান্দী এবং সমস্ত হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা সকলেই নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত খিদমতগার। সুবহানাল্লাহ! নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি যদি আপনাদেরকে তালাক্ব দেন অর্থাৎ আপনাদেরকে রুখসত দেয়ার ব্যবস্থা করেন, তাহলে যিনি খ¦ালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি উনাকে আপনাদের থেকে উত্তম উম্মুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম পাল্টিয়ে দিবেন। উনারা মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট আত্মসমর্পণকারিণী হবেন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি বিশ্বাসস্থাপনকারিণী হবেন, প্রত্যেকেই অত্যন্ত অনুগতা হবেন, প্রত্যেকেই তাওবাকারিণী হবেন, প্রত্যেকেই অত্যন্ত ইবাদাতকারিণী হবেন, প্রত্যেকেই অনেক রোযা রাখবেন, অনেকে অকুমারী এবং অনেকে কুমারী হবেন।” সুবহানাল্লাহ! (সম্মানিত সূরা তাহরীম শরীফ : সম্মানিত আয়াত শরীফ ১-৫)







For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Mudda Jilluhul Aali
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal