অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...

al-ihsan.net
বাংলা | English

ইসলামিক শিক্ষা - ১৭ জানুয়ারী, ২০১৭
 
পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উদযাপন ও পবিত্র মীলাদ শরীফ পাঠ সম্পর্কে- প্রখ্যাত ওলীআল্লাহ ও আলিমে দ্বীন, সুলতানুল আরিফীন, মুজাদ্দিদে যামান রঈসুল মুফাসসিরীন ওয়াল মুহাদ্দিছীন ওয়াল ফুক্বাহা, আশিকু রসূলিল্লাহ হযরত ইমাম আবুল ফদ্বল আব্দুর রহমান জালালুদ্দীন আস সুয়ূতী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার গুরুত্বপূর্ণ ফতওয়া। (পর্ব-১০)
-আল্লামা আবুল খায়ের মুহম্মদ আযীযুল্লাহ।

পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উদযাপন ও পবিত্র মীলাদ শরীফ পাঠ সম্পর্কে- প্রখ্যাত ওলীআল্লাহ ও আলিমে দ্বীন, সুলতানুল আরিফীন, মুজাদ্দিদে যামান, রঈসুল মুফাসসিরীন ওয়াল মুহাদ্দিছীন ওয়াল ফুক্বাহা, আশিকু রসূলিল্লাহ, হযরত ইমাম আবুল ফদ্বল আব্দুর রহমান জালালুদ্দীন আস সুয়ূতী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি উনার লিখিত বিশ্বখ্যাত ও মশহুর কিতাব “হুসনুল মাক্বছাদ ফী আমালিল মাওলিদ” নামক কিতাবে যে ফতওয়া প্রদান করেছেন- নিম্নে তা ধারাবাহিকভাবে তুলে ধরা হলো- পবিত্র মীলাদ শরীফ বিরোধী ফাকেহানীর বক্তব্য أحدهما: أن يعمله رجل من عين ماله لأهله وأصحابه و عياله لا يجاوزون فى ذلك الاجتماع على أكل الطعام ولا يقترفون شيئا من الاثام، وهذا الذى وصفناه بأنه بدعة مكروهة وشناعة إذ لم يفعله أحد من متقدمين أهل الطاعة الذين هم فقهاء الإسلام و علماء الأنام سرج الأزمنة وزين الأمكنة. অর্থাৎ প্রথমত: কোনো ব্যক্তি (পবিত্র মীলাদ শরীফ অনুষ্ঠান) তার নিজস্ব মাল দ্বারা, তার পরিবার-পরিজন ও আত্মীয়-স্বজন নিয়ে পালন করে। উক্ত অনুষ্ঠানে খানা-পিনায় সীমালঙ্ঘন থাকে না। কোনো পাপাচারও সেখানে হয় না। এ জাতীয় অনুষ্ঠানকে আমরা বেদআতে মাকরূহা বা খারাপ ও বীভৎস বেদআত বলে আখ্যা দিয়েছি। (নাউযুবিল্লাহ) যেহেতু পূর্ববর্তী ধর্মভীরু ব্যক্তিবর্গের কেউ তা করেননি। অথচ উনারাই সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে অভিজ্ঞ, সৃষ্টির মধ্যে জ্ঞানী-গুণী, যুগের বাতি ও স্থানের সৌন্দর্য। والثانى: أن تدخله الجناية وتقوى به العناية حتى يعطى أحدهم الشىء ونفسه تتبعه وقلبه يؤلمه ويوجعه لما يجد من ألم الحيف، وقد قال العلماء: أخذ المال بالحياء كأخذه بالسيف، لا سيما إن انضاف إلى ذلك شىء من الغناء مع البطون الملأى بالات الباطل من الدفوف والشبابات، واجتماع الرجال مع الشباب المرد والنساء الفائتات، إما مختلطات بهن أو مشرفات، والرقص بالتثنى والانعطاف والاستغراق فى اللهو ونسيان يوم المخاف، وكذلك النساء إذا اجتمعن على انفرادهن رافعات أصواتهن بالتهنيك والتطريب فى الإنشاد والخروج فى التلاوة والذكر المشروع والأمر المعتاد غافلات عن قوله تعالى "إن ربك لبالمرصاد" (الفجر-১৪). وهذا الذى لا يختلف فى تحريمه اثنان ولا يستحسنه ذوو المروءة الفتيان، وإنما يحلو ذلك لنفوس موتى القلوب وغير المستقلين من الاثام و الذذوب، وأزيدك أنهم يرونه من العبادات لا من الأمور المنكرات المحرمات "فإنا لله وإنا إليه راجعون"، بدأ الإسلام غريبا وسيعود كمابدا. অর্থাৎ দ্বিতীয়ত: উক্ত অনুষ্ঠানে বিবিধ পাপাচার-অনাচার অনুপ্রবেশ করে, খরচ নির্বাহের জন্য চলে জোর-জবরদস্তি ও বাড়াবাড়ি। এ অবস্থায় কেউ কিছু অনিচ্ছাসত্বে (অপারগ হয়ে) দান করলেও দাতার মন তাকে ধিক্কার দেয়, অন্তর দেয় জ্বালা যন্ত্রণা, কষ্ট দেয় এ অন্যায় অনুচিত অনভিপ্রেত কার্যাবলী। আর ও’লামায়ে কেরামতো বলেই রেখেছেন, লজ্জায় ফেলে অর্থ সংগ্রহ (দিতে বাধ্য) করা, ছুরি/পিস্তল ঠেকিয়ে আদায় করার মতোই। এছাড়াও এর সাথে যদি যুক্ত হয় গান-বাজনা, সাথে হারাম বাদ্যযন্ত্রসমূহ; ঢাক-ঢোল, তবলা-বেহালা, একতারা-দোতারা এবং যুবতী ললনা। একাকার হয়ে যায় পুরুষ, চরিত্রহীন উচ্ছৃঙ্খল যুবক ও সম্মোহিনী সুন্দরীরা। চাই যুবতী মেয়েরা মিলেমিশে একাকার হউক বা তদারকি করুক। নাচে-গানে বিভোর হয়ে, খেল তামাশায় মত্ত হয়ে, শেষ বিচারের দিনের কথা ভুলে যায়। তেমনিভাবে শুধু মহিলারা আলাদা একসাথে হয়ে উচ্চ স্বরে, হাততালি বাজিয়ে কবিতা আবৃতি করে, পবিত্র কুরআন তিলাওয়াত ও জিকিরের শরীয়াতের নির্ধারিত সীমা ছাড়িয়ে মহান আল্লাহ পাক উনার এ বাণী ভুলে যায়, ("إنَّ رَبَّكَ لبالمرصادِ") ‘নিশ্চয় তোমার রব ওঁৎপেতে আছেন’ (পবিত্র সূরা আলফাজ্র শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ১৪)। এ ধরনের অনুষ্ঠান হারাম হওয়ার বিষয়ে দু’জনের মধ্যেও দ্বিমত হতে পারে না, ভালো বলতে পারে না রুচিশীল যুবক ছেলেরাও। বস্তুত মৃত আত্মার অধিকারী ও যারা পাপ-পঙ্কিলতা বিমুক্ত নয় তাদের নিকট তা হালুয়া-মিঠাইর মতো সুস্বাদু মনে হয়। আরো অতিরিক্ত অবগত করছি- তারা এটাকে ইবাদত মনে করে, খারাপ-ঘৃণ্য ও নিষিদ্ধ বিশ্বাস করে না। "فإنا لِلهِ وَإنا إليهِ رَاجغون" সুতরাং বলতেই হয়:- ‘আমরা মহান আল্লাহ পাক উনার আর মহান আল্লাহ পাক উনার কাছেই ফিরে যাব’। সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার সূচনা অপরিচিতরূপে আবার ফিরেও যাবে যেভাবে সূচনা হয়েছিল সে অবস্থায়।







For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Mudda Jilluhul Aali
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal