অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...

al-ihsan.net
বাংলা | English

বিশেষ প্রতিবেদন - ১৭ জানুয়ারী, ২০১৭
 
মালানা সাইদুর : জামাত-শিবির নেতা থেকে সন্ত্রাসী সর্দার-২
আল ইহসান ডেস্ক:

২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সারাদেশে সিরিজ বোমা হামলার পর পুলিশ মালানা সাইদুর রহমানের ছেলে শামীমকে গ্রেফতার করে। এরপরই সাইদুর চলে যায় সিলেটে। এরই মধ্যে জেএমবি’র শীর্ষনেতা ওহাবী মালানা আব্দুর রহমান ওরফে আব্দুশ শয়তান আত্মরক্ষার জন্য সিলেটে এসে আশ্রয় নেয়। সন্ত্রাসী তৎপরতার সঙ্গে জড়িত হওয়ার পর অসংখ্যবার নিজ নাম পরিবর্তন করেছে মাও. সাইদুর। বহুরূপী সাইদুর গ্রামের বাড়িতে ‘আইয়ুব আলী’ নামে পরিচিত। সারাদেশে আলোচিত এ সন্ত্রাসী নেতার আরও কিছু নাম আছে। সিলেটে অবস্থানকালে সে নিজেকে কখনও ‘সাইফুল্লাহ’ কখনও ‘সাব্বির’ বলে পরিচয় দিতো। ওহাবী নেতা মাও. আব্দুশ শয়তানকে গ্রেফতারের দিন চারটি চেক বই উদ্ধার করা হয়। একটি চেক বইয়ে সাইদুরের নাম ছিলো সাব্বির আহমেদ। সাইদুর রহমান সাব্বির নামে ইসলামী ব্যাংকের তালতলা শাখায় ওই হিসাব খুলেছিলো। ওহাবী নেতা মাও. আব্দুশ শয়তান সপরিবারে থাকতো সিলেটের টিলাগড়ের পূর্ব-শাপলাবাগের সূর্যদীঘল বাড়িতে। এর প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে শিবগঞ্জ হাতিমবাগের ৯১/বি বাসায় সপরিবারে ভাড়া থাকতো মালানা সাইদুর। এ সময় সে জাফলং ও ভোলাগঞ্জে পাথর ব্যবসা করতো। র‌্যাবের হাতে ওহাবী নেতা মাও. আব্দুশ শয়তান ধরা পড়লে নিজ বাসায় তালা লাগিয়ে রাতের আঁধারে পালায় সাইদুর। পরে র‌্যাব বাসার তালা ভেঙে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধার করে। এ ঘটনায় এক মামলায় ২০০৯ সালের ১২ সেপ্টেম্বর আদালত মালানা সাইদুরকে ১৪ বছরের কারাদ- দেয়।







For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Mudda Jilluhul Aali
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal