অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...

al-ihsan.net
বাংলা | English

বিশেষ প্রতিবেদন - ১৫ জানুয়ারী, ২০১৭
 
যুদ্ধাপরাধের বিচার-১২: পাকী বাহিনীর গণহত্যায় সহযোগী ছিল শান্তিকমিটি
আল ইহসান ডেস্ক:

শান্তিকমিটির অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের প্রমাণ পাওয়া যায় ১৯৭১ সালের ৮ সেপ্টেম্বর ওয়াশিংটনে Washington Special Actions Group Meeting G Henry A.Kissinger I Maurice Williams -এর কথোপকথনে। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে শান্তিকমিটির ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের কথাও ১৯৭১ সালের বিভিন্ন পত্রিকায় উঠে আসে। ১৯৭১ সালের ৪ নভেম্বর দৈনিক সংগ্রামের রিপোর্টে বলা হয়, পাকিস্তান সেনাবাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ডের অধিনায়ক লে.জে. এ এ কে নিয়াজী রংপুর জেলার উত্তরে অবস্থিত ডোমারে শান্তিকমিটির সদস্যদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেয়। ভাষণে জেনারেল নিয়াজী পাকিস্তানের শত্রুদের (মুক্তিযোদ্ধাদের) প্রতিহত করার ব্যাপারে রংপুরে জনগণের প্রচেষ্টার প্রশংসা করে এবং দেশের ঐক্য ও সংহতি রক্ষার কাজে নিয়োজিত রাজাকারদের কথা উল্লেখ করে। রিপোর্টে আরো বলা হয় যে, পূর্বাহ্নে স্থানীয় অধিনায়ক জেনারেল নিয়াজীকে অবহিত করে যে, রাজাকার বাহিনীর আল-বাদর ও আল-শামস সংগঠনগুলো এককভাবে এবং সেনাবাহিনীর সঙ্গে বিভিন্ন অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। পূর্ব-পাকিস্তানের গভর্নর এবং ‘খ’ অঞ্চলের সামরিক আইন প্রশাসক লে. জে. টিক্কা খান রংপুরে শান্তিকমিটির সদস্যদের এক বৈঠকে বক্তৃতায় দুষ্কৃতকারীদের (মুক্তিযোদ্ধাদের) উচ্ছেদ ও শান্তি রক্ষার ভূয়সী প্রশংসা করে, যা ১৯৭১ সালের ১২ আগস্ট দৈনিক আজাদে প্রকাশিত হয়।







For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Mudda Jilluhul Aali
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal